কাঁচা পেঁপের উপকারিতা

                                    কাঁচা পেঁপের উপকারিতা       

কাঁচা-পেঁপের-উপকারিতাঅনেক কঠিন রোগ থেকে সাফা পেতে হলে বেশী বেশী কাঁচা পেঁপে খাওয়া দরকার । কাঁচা পেঁপে খেলে কি কি উপকার হয় তা আমি তুলে ধরলাম ।

উপকারীতা :

১.   ১০ ফোটা করে কাঁচা পেপের দুধ বা আটা প্রতিদিন অল্প পানিতে মিশিয়ে খেলে দাদ ও র্চমরোগ সারে , কৃমি নাশ হয় ।

২.   প্রতিদিন দুপুরে ভাত খাওয়ার পর এবং রাতে ভাত বা রুটি খাওয়ার পর এক টুকরো কাঁচা পেঁপে ভাল করে চিবিয়ে খেয়ে এক গ্লাস পানি খেলে সকালে পেট পরিস্কার হয় – অম্বল ও বদহজমের কষ্ট দূর হয় ।

৩. দুই চা চামচ কাঁচা পেঁপের আঠায় ২ চা চামচ ‍চিনি মিশিয়ে কিছুদিন ধরে দিনে তিনবার করে খেলে  পিলের আয়তন ক্রমশ কমে যায় ।

৪.  দুই চা চামচ পেঁপের আঠায় ১ চা চামচ চিনি মিশিয়ে দুধের সঙ্গে খেলে অম্বল ও অজীর্ণ রোগে উপকার হয় ।

৫. যে সব মায়েদের সদ্য বাচ্চা হয়েছে কাঁচা পেঁপের তরকারি নিয়মিত খেলে তাঁদের স্তনের দুধ বাড়বে ।

৬. পিলে ও  লিভার বেড়ে যাওয়া , তার সঙ্গে জ্বর ও দুর্বলতারি ঔষধ হিসেবে দিনে ও রাতে খাওয়া-দাওয়ার পর নিয়মিত ৫/১০ ফোঁটা করে পেঁপের আঠা খেলে উপকার পাওয়া যায় ।

৭. ঔষধ হিসেবে কাঁচা পেঁপের গুণ পাঁকা পেঁপের চেয়েও বেশী । পেপটিন বা পেঁপের আঠার গুণ অশেষ ।

৮. বড় কাঁচা পেঁপে চিরে নিয়ে তার নিচে একটি কাপ বা ডিশ রাখুন । এইভাবে দুধ বের করে নিন । এই দুধ বা আঠা তৎক্ষণাৎ রোদে শুকিয়ে নিন । এই আঠা গুড়ো করে শিশিতে ঢাকনা বন্ধ করে রাখুন গ্যাস্ট্রিক আলসার বা গ্যাস্ট্রিকের অসুখে এই চূর্ণ আশ্চর্য ভালো ফল দেয় । পাকস্থলীর দাহ , বায়ু গোলক , ব্রণ , অম্লপিত্ত , বদহজম প্রভৃতি অসুখও এই চূর্ণ নিয়মিত খেলে সেরে যায় ।

৯. আধ চামচ পেঁপের দুধ চিনি মিশিয়ে খেলে অজীর্ণতা সারে ।

১০. কাঁচা পেঁপের বীজ কৃমি নাশক ।

১১. এই বীজ খেলে মেয়েদের ঋতু ‍নিয়মিত হয় এবং বেশী পরিমাণে খেলে গর্ভপাত হয় ।

১২. পেঁপের পাতা পানিতে সদ্ধ করে চায়ের মতো তৈরি করে খাওয়ালে  রিধ রোগে লাভ দেয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!