দুর্জন বিদ্বান হইলেও পরিত্যাজ্য ভাবসম্প্রসারণ

দুর্জন বিদ্বান হইলেও পরিত্যাজ্য ভাবসম্প্রসারণ

মূলভাবঃ দুর্জন শব্দের আভিধানিক অর্থ দুষ্ট, দুরাত্মা, দুর্বৃত্ত, খারাপ লোক ইত্যাদি । আর বিদ্বান হল পন্ডিত, শুশিক্ষিত, জ্ঞানী ইত্যাদি । দুর্জন বিদ্বান হলেও নিন্দনীয় এবং এরূপ ব্যক্তির সঙ্গ বর্জনীয় ।

সম্প্রসারিত-ভাবঃ মানুষ যে সমাজের উপর নির্ভর করে জীবনযাপন করে সে সমাজে আছে নানা ধরনের লোক-জ্ঞানি-মূর্খ, ভাল-মন্দ, সৎ-অসৎ নানা রকম সমাবেশ সেখানে । সঙ্গ নির্বাচনে একমাত্র বিবেচনার ‍দিক হল গুণবানের  বৈশিষ্ট্য- যার সহায়তায় জীবন হয়ে উঠে উজ্জ্বল। সেখানে দুর্জন বা চরিত্রহীন লোকের অনুপ্রবেশের কোন সুযোগ নেই। মানুষের সবচেয়ে বড় গুণ তার চরিত্র । ইংরেজিতে একটি প্রবাদ আছে,- the crown and glory of life is character.

চরিত্রের গুণেই মানুষ শ্রেষ্ট আর্দশের মর্যাদা পায় । এই চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ঠিক রেখে অপরাপর বৈশিষ্ট্যের বিকাশ ঘটানো আবশ্যক । অপরপক্ষে, বিদ্যা মানবজীবনের অমূল্য সম্পদ । বিদ্যার হিরন্ময় দীপ্তিচ্ছটায় মানুষ হয়ে উঠে মহীয়ান । বিদ্বান সর্বত্র মর্যাদাবান ও মহাসম্মানের পাত্র । কিন্তুূ এ বিদ্বান যদি চরিত্রবান না হন, তাহলে সবই ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয় । কারন মন্দস্বভাব তার সব গুণকে ম্লান করে দেয় ।

চরিত্র বিদ্যা অপেক্ষা অধিক মূল্যবান । তাই সচ্চরিত্র ব্যক্তি মূর্খ হলেও জ্ঞানার্জনের জন্যে চরিত্রহীন জ্ঞানী ব্যক্তির সংস্পর্শে যাওয়া কোন ক্রমেই ঠিক নয় । কারণ দুর্জনের সাহচর্যে নিষ্কলুষ চরিত্রও কলুষিত হতে পারে। দুর্জন ব্যক্তি বিদ্যায় বুদ্বিতে মহাপন্ডিত বলে খ্যাতিমান হলেও সবার উচিত তার সঙ্গ পরিহার করা । কারন চরিত্রহীনের বিদ্যা-বুদ্ধি চরিত্রবানের কোন কাজে আসে না।

কোন কোন বিষধর সাপের মাথায় অতিমূলবান মনি আছে বলে প্রবাদ আছে। বিষধর সাপের মূলবান মনি সংগ্রহ করতে পারলে বিপুল সম্পদের অধিকারী হওয়া যায় । কিন্তুূ তাই বলে মনি লাভের আশায় কেউ বিষধর সাপের সান্নিধ্যে যায় না । অনুরুূপ, বিদ্যা মহামূলবান বস্তুূ হলেও তা লাভেল জন্যে চরিত্রহীন-বিদ্বানের কাছে যাওয়া বিধেয় নয় । দুর্জনের বিদ্যা আর বিষধর সাপের মণি উভয়ই বিপদের কারণ হতে পারে । তাই সুন্দর জীবনের জন্যে, দুর্জনকে পরিহার করতে হবে- তার বিদ্যাবত্তা বিবেচনার যোগ নয় । চরিত্র মানুষের মূলবান সম্পদ তা আমরা জানি । তাই সব সময় আমরা চাই চরিত্রবান ব্যক্তির সংস্পর্শে থাকতে তার থেকে কিভাবে সুন্দর চরিত্রবান হওয়া যায় ভাল ও মন্দের তপাত যাতে বুঝা যায় । অসৎ ও চরিত্রহীন মানুষকে সবাই ঘৃণা করে । সামনা সামনি যদিও তাকে সম্মান করা হয় কিন্তুূ পিচনে সবাই তাকে অবহেলা করে । চরিত্র মানব জীবনের অনেক গুরুত্বপূর্ন্য চাবিকাঠি ।

মন্তব্যঃ চরিত্র মানব জীবনের শ্রেষ্ঠ সম্পদ । চরিত্র নষ্ট হলে মানুষ আর মানুষ থাকে না, পশুতে পরিণত হয়। তাই চরিত্রহীন-বিদ্বানের সাহচর্য অবশ্যই পরিত্যাজ্য । চরিত্রহীন মানুষ থেকে সবাই সব সময় দূরে থাকতে চায় তাকে সবাই ঘৃণা করে । চরিত্রবান মানুষ শিক্ষিত মানুষ অপেক্ষায় অধিক উত্তম তা সকলে জানে । তাই সবাই উচিত সহচরিত্রের অধিকারী হওয়া ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!