রচনা : ঈদ উৎসব

রচনা : ঈদ উৎসব

সূচনা: ঈদ মানে খুশি ঈদ মানে আনন্দ । ঈদ নিয়ে আসে মুসলিমদের জন্য খুশির জোয়ার । ঈদ হলো মুসলিমদের জন্য সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব । প্রত্যেক দেশের মানুষরা ঈদের দিনটি অনেক ভিন্ন ভাবে পালন করে থাকে । ঈদ পুরো বিশ্বের মুসলিমদের জন্য অনেক বড় স্পেশাল দিন ।

ঈদ উৎসব: ঈদ উৎসব বিশ্বের মুসলমানদের জন্য অনেক বড় ধর্মীম উৎসব । বছরে দু’বার এইটা হয়ে থাকে । এই দুই ঈদে মুসলিমরা অনেক বেশি মজা ও আনন্দ উৎসবে মেতে থাকেন । ঈদের দিন সকল মুসলমানরা একে অন্যের বাড়িতে যায় এবং আত্মীয় সজনরা একে অপরের বাড়িতে যায় নাস্তা পানিয় খায় ।

ঈদ-উল-ফিতর: ঈদ মুসলমানদের একটি উৎসব । এটা বছরে দু’বার হয়ে থাকে । একটি রমজান মাসের শেষে এবং অন্যটি ১০ জিলহজ্ব তারিখে আনুষ্ঠানিক ভাবে এটিকে বলা হয় ঈদ-উল-ফিতর । রমজান ইসলামী বছরের নবম মাস । মুসলমানরা পুরো মাস রোজা রাখে । রমজান মাস শেষে তাদের বাধঁ ভাঙ্গা আনন্দ হয় । প্রত্যেক মুসলিম তার আয়ের কিছু অংশ দরিদ্র এবং অসহায়দের মধ্যে ফিতরা হিসেবে বিতরণ করে । শাওয়াল মাসের ১ম দিন সকালে প্রত্যেক মুসলমান-যুকক, বৃদ্ধ, ধনি, দারিদ্র- সকলেই গোসল করে । তারা তাদের সবচেয়ে ভাল পোশাক পরিধান করে এবং জামাতে নামাজ পড়ার জন্য ঈদ গাহে যায় । নামায শেষে ইমাম খুতবা পড়েন এবং ছোটখাটো কথা বলেন । কথা শেষ হওয়ার পর তারা একে অন্যকে আলিঙ্গন করে এবং সকল খারাপ অনুভূতি এবং শত্রূতা ভুলে যায় । তারা তাদের নিজ নিজ গৃহে ফিরে ঐ দিনের জন্য তৈরি করা বিশেষ খাবার খায় । পুরো দিনটিই আনন্দ এবং মজার ভেতর দিয়ে কাটে ।

ঈদ-উল-আযহা: মুসলমানদের  দুটি ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে ঈদ-উল-আযহা অন্যতম । ঈদ-উল-আযহা উদযাপনের মধ্য দিয়ে মুসলমানরা নবী ইব্রাহীম (আঃ) এর আত্মত্যাগের কথা স্মরণ করে । তিনি তাঁর প্রিয় সন্তান ইসমাঈল (আঃ) কে সর্বশক্তিমান আল্লাহর নামে উৎর্সগ করতে চেয়েছিলেন । সেদিন থেকে মুসলিমরা এ উৎসবকে একই ভাবে ঈদ-উল-আযহা নামে উদযাপন করে । জিলহজ্ব মাসের ১০ তারিখ সকালে সকল মুসলমান মাঠে একত্রিত হন এবং জামাতে নামাজ পড়ে । নামাজ শেষে তারা নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে আসে। তারপর তারা আল্লাহর নামে গরু, ছাগল অথবা অন্য প্রাণী কুরবানী করে । তারা তাদের পশুর মাংসের এক অংশ বন্ধু, বান্ধব, আত্মীয়স্বজন এবং দরিদ্র প্রতিবেশিদের মাঝে বিতরণ করে । বাকিটা তারা মেহমান, বন্ধ-বান্ধব ও আত্মীয়দেরকে আপ্যায়নের জন্য রাখে ।

উপসংহার: ঈদ সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্য অনেক বড় উৎসব । এই দুই ঈদে সারা বিশ্বের মুসলমানরা সবাই একত্রে হয়ে থাকে । মুসলিমদের জন্য এই দুটো ঈদ অনেক বড় ধর্মীয় উৎসব । এই দুই ঈদ উৎসবই আমাদেরকে আত্মোৎসর্গ, একতা এবং ভ্রাতৃত্বের শিক্ষা দেয় । এভাবে আমরা উৎসব গুলোকে উৎসাহ এবং জাঁকজমকের সাথে পালন করি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!