মুজিব বর্ষ

মুজিব বর্ষ

 

মুজিব বর্ষ

মুজিব বর্ষ: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতির জন্য এক মহান ব্যক্তি । পৃথিবীর জন্মলগ্ন থেকে অনেক মহাপুরুষের আর্বিভাব ঘটেছে ঠিক তেমনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতির জন্য এমনই এক মহাপুরুষ । যিনি কিনা যত দিন বেঁচে ছিলেন তত দিন শুধু সংগ্রাম করে গিয়েছেন বাঙালিদের অধিকার আদায়ের জন্য । তিনি সব সময় সাহস দিয়েছেন অসহায় বাঙালিদের যখন বাঙালি জাতি  একে বারে একা হয়ে পড়েছিল তখন এই এক মাএ শেখ মুজিবুর রহমানের অনুপ্রেরণায় বাঙালিরা যুদ্ধে গিয়েছে লড়াই করে এই দেশ স্বাধীন করতে পেরেছে শুধু মাত্র এই শেখ মুজিবুর রহমানের অনুপ্রেরণায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিখেছেন কিভাবে বুক উচু করে সাহসিকতার সাথে শত্রূদের কাছ থেকে দেশকে উদ্ধার করতে হবে। দেশের মানুষের জন্য দেশের জন্য শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান কখনো অস্বীকার করা যাবে না।

১৯২০ সালের ১৭ মার্চ শেখ লুৎফুর রহমান ও শেখ সাহেরা খাতুনের ঘর আলো করে জন্ম নেয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান । বঙ্গবন্ধুর শৈশব ও কৈশর কেটেছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা টুঙ্গিপাড়া গ্রামে। টুুুঙ্গিপাড়া গ্রামেই সবুজ শ্যামলা আলো বাতাসে ঘেরা প্রকৃতির মাঝে বড় হয়েছেন শেখ মুজিবুর রহমান। পাখি ও জীব জন্তুর প্রতি ছিল অনেক টান । তিনি ফুটবল খেলা অনেক পচন্দ করতেন । গ্রামের মাটি ও মানুষের প্রতি ছিল তার অনেক মমতা ও ভালবাসা । ‍তিনি শিশুদের অনেক ভালবাসতেন ।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপনের জন্য মুজিব বর্ষ ঘোষিত হয়েছে । বাংলাদেশ সরকার ২০২০-২০২১ সালকে মুজিব বর্ষ ‍হিসেবে উদযাপনের ঘোষণা দিয়েছেন । ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত এ বর্ষ পালন করা হবে । জাতির পিতা এবং বঙ্গবন্ধু খ্যাত এই তেজস্বী নেতা বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ  জন্ম গ্রহন করে। আবার ২০২১ সালের ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতার অর্ধশত বার্ষিকীতে পর্দাপন করবে । বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে শেখ মুুুজবুর রহমান অনেক গ্রভীর শ্রদ্রার সাথে জড়িত থাকায় ঘোষিত মুজিব বর্ষটি বিশেষ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্য্যপূর্ণ ।

জাঁকজমকপূর্ণভাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পালনের কমিটি দুটি গঠন করেছে সরকার। এর মধ্যে একটি হচ্ছে ১০২ সদস্যবিশিষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটি । এ কমিটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । অন্যদিকে জাতীয় অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামকে সভাপতি ও কবি কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীকে প্রধান সমন্বয়কারী করে গঠন করা হয়েছে ৬১ সদস্যবিশিষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বণিক বার্তাকে বলেন, আগামী ১৭ মার্চ মুজিব বর্ষ শুরু হচ্ছে । শুধু বাংলাদেশ নয়, দেশের বাইরে সারা পৃথিবীতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপিত হবে । এ উদযাপনের তৃণমূল পর্যায়ের জনগণ থেকে শুরু করে সারা পৃথিবীকে সম্পৃক্ত করা হবে । সে অনুযায়ী আমাদের পরিকল্পনা সাজানো হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!