আমার উপভোগ্য গ্রীষ্মকালীন ছুটি ভাবসম্প্রসারণ

আমার উপভোগ্য গ্রীষ্মকালীন ছুটি ভাবসম্প্রসারণ

 

মূলভাবঃ আর দশজন ছাত্র-ছাত্রীর মতই আমার কাছেও গ্রীষ্মের দীর্ঘ ছুটির মত আর কোন কাক্ষিত জিনিস নেই।

সম্প্রসারিত-ভাবঃ এটা নিত্যদিনের ক্লান্তিকর বাঁধা জীবনে দীর্ঘ বিশ্রাম এনে দেয়। এছাড়া এটি আমাদের শরীর এবং মনের বিশ্রাম এবং আমোদ-প্রমোদের উদ্দেশ্য দীর্ঘ ছুটি। ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে বিভিন্ন ধরণের মনমুগ্ধকর জিনিস থাকে। গ্রীষ্মে আম এবং কাঠাল পাকে। তাই গত গ্রীষ্মের ছুটির প্রথম কিছুদিন কিছু নিকটাত্মীয়ের সাথে দেখা করেছি এবং জাম, আম, কাঁঠাল খেয়ে নিজেকে পরিতৃপ্ত করেছি।

মামার বাড়িতে আমার মামী আমার জন্য সেরা কিছু আম বেছে রেখেছিলেন। তিনি আমাকে দুধ দিয়ে আম এবং আমের শরবত খাইয়ে খুব আনন্দ দিয়েছেন। কিন্তু্ূ আমি এতটা পাগল নই যে, একটা ছুটি এরকমভাবে শুধু খেয়েই পার করে দেব। আমি আনন্দের সাথে অর্জন এবং বিনোদনের সাথে নির্দেশনার সমন্বয় করি।

তাই আমি বেড়ানোর পর পরই নিজেকে পড়াশোনায় নিয়োজিত করলাম। আমি ছুটির সব পড়া রিভিশন করার পরিকল্পনা করলাম। আমি সকাল সন্ধায় পড়লাম এবং প্রতিদিন দুপুরে অঙ্ক কষলাম।

আমার বন্ধুরা এবং আমি দু’সপ্তাহের  জন্য অজ্ঞতার বিরুদ্ধে প্রচারভিযান চালালাম। আমরা নৈশকালীন বিদ্যালয় খুললাম যেখানে আমরা বয়স্কদের তিনটি কাজ সম্পর্কে শিক্ষা দিলাম এবং বিভিন্ন দেশের কৃষি ব্যবস্থার উপর তুলনামূলক জ্ঞান ‍দিলাম। এছাড়াও আমি কিছু সময় আমার পিতামাতাকে তাদের দৈনন্দিন কাজকর্মে সাহায্য করতে লাগলাম।

মন্তব্যঃ এভাবে আমি আমার গ্রীষ্মের ছুটিকে শিক্ষা এবং আনন্দের সমম্বয়ে অতিবাহিত করলাম। এভাবে ছুটির দিন আমার কাছে বিভিন্ন দিক দিয়ে লাভজনক হয়ে উঠল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!